রবিবার, ০৯ মে ২০২১, ১২:৩৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :
কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ‘৩৩৩’ এ ফোন পেয়ে খাবার নিয়ে গেল ইউএনও রাজীবুল ইসলাম খান করোনার কারনে পালিত হচ্ছেনা বিশ্বকবি রবি ঠাকুরের ২৫ শে বৈশাখে ১৬০ তম জন্মজয়ন্তী কুষ্টিয়ার কুমারখালী হতদরিদ্রের জন্য বিনামূল্যে মিলছে ঈদ বস্ত্র গেমেস’র নেশায় আসক্ত হয়ে ধ্বংস হচ্ছে হাজারো যুবক বকচরায় মৎস্য ঘের থেকে যুবকের ভাসমান মরদেহ উদ্ধার টাঙ্গাইলে র‍্যাবের অভিযানে গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার কেমন আছেন সাতক্ষীরার ইত্যাদি খ্যাত চুল দিয়ে গাড়ি টানা যুবক আব্দুস সবুর কুমারখালীর শ্রমিকরা পেল প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ নাগরপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত কুমিল্লা মুরাদনগরে উপজেলায় পথচারীদের মাঝে যুবলীগের ইফতার বিতরণ

খোকসাতে গাজা সম্রাট এরশাদ ধরা ছোঁয়ার বাইরে থেকে চালাচ্ছেন অবৈধ মাদক কারবার

নিজস্ব প্রতিবেদক / ১৭১ বার পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : বুধবার, ২১ এপ্রিল, ২০২১, ৪:৩০ অপরাহ্ন

খোকসাতে গাজা সম্রাট এরশাদ ধরা ছোঁয়ার বাইরে থেকে চালাচ্ছেন অবৈধ মাদক কারবার ।

 

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

কুষ্টিয়ার খোকসা উপজেলার এক্তারপুর গ্রামের তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক সম্রাট এরশাদ এলাকায় বীর দাপটে শুরু করেছেন অবৈধ মাদক কারবার। মাদকের ছোঁয়ায় সম্ভাবনাময় তারুণেরা অধঃপতনের চরম শিখরে উপনীত হচ্ছে।

গাজা সম্রাট এরশাদের এই অবৈধ মাদককারবারের ফলে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে এলাকার যুব সমাজ। মাদকের ছোঁয়ায় যুবকেরা আজ ধ্বংসের পথে, এদের বাঁচাতে না পারলে সমাজ দেশের ব্যপক ক্ষতি হবে। এক্তারপুর এলাকায় মাদকের বিস্তৃতি ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। তরুণ ও যুবসমাজ ব্যাপক হারে মাদকাসক্ত হয়ে পড়ছে।

মাদক বর্তমান সমাজে জন্ম দিচ্ছে একের পর এক অপরাধ। প্রজন্ম থেকে প্রজন্ম বিধ্বংসকারী মাদকের বিস্তার সমাজে যেভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে তাতে সচেতন অভিভাবক মহল উদ্বিগ্ন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গাজা ব্যবসায়ী এরশাদের কারনে এক্তারপুর গ্রামসহ আশেপাশের গ্রামের স্কুল-কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও মাদকাসক্ত হচ্ছে।

একজন মানুষ যখন অপরাধজগতে পা বাড়ায়, প্রথম সিঁড়িটি হলো মাদকদ্রব্য। না বুঝেই অনেক তরুণ এ পথে পা দিয়ে বিপথগামী হয়ে যাচ্ছে। মাদকাসক্ত সন্তানের কারণে এক একটি পরিবার ধ্বংস হয়ে যায়। অনেক শিক্ষার্থী নেশার মোহে পড়ে সম্ভাবনাময় জীবনকে অনিশ্চয়তার মধ্যে ঠেলে দিচ্ছে।

এক্তারপুরের গাজা সম্রাট এরশাদ চালাচ্ছে মাদকের রমরমা ব্যবসা। অনেকে নেশার টাকা জোগাড় করতে নেমে পড়ছে অপরাধ জগতে। মাদকের চাহিদা মেটাতে তরুণ-তরুণীরা ক্রমেই অপরাধপ্রবণ হয়ে উঠছে।

মাদক সম্রাট এরশাদ একাধিকবার গাজা সহ পুলিশের হাতে গ্রেফতার হলেও আইনের ফাঁকে বেরিয়ে এসে আবারো চালায় রমরমা মাদক ব্যবসা ।

একটি সুষ্ঠু সমাজব্যবস্থা বিনির্মাণের জন্য সুস্থ মস্তিঙ্ক একান্তভাবেই কাম্য। মাদক মানুষের বিবেক-বুদ্ধিকে নস্যাৎ করে দেয়। ফলে ব্যক্তি, সমাজ ও রাষ্ট্র তথা গোটা মানব সমাজের অকল্যাণ ও অমঙ্গল সাধিত হয়। আজ মাদকাসক্তি বিশ্ব মানবতার জন্য এক ভয়াবহ অভিশাপ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এটি অসংখ্য পাপকার্য, অপরাধ ও অসামাজিক কর্মের মূল।

চিকিৎসকদের মতে, যারা শিশু ও কিশোর অবস্থা থেকে মাদক সেবন করে থাকে তাদের মস্তিষ্কে নানান সমস্যা দেখা দেয়। একটি গুরুত্বপূর্ণ কথা তারা বেশিক্ষণ মনে রাখতে পারে না। মানসিক বিকারগ্রস্ত হয়ে যায়।

মাদকের এই মরণ ফাঁদ থেকে সৃজনীশক্তি , বিশৃঙ্খলা ও বিধ্বস্ত মনের স্বাস্থ্য, নৈতিক মূল্যবোধ ক্ষয় , তরুণদের একাংশের সুবুদ্ধি ও সুবিবেচনা থেকে রক্ষা করতে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকার সুশিল সমাজ।


আপনার মতামত লিখুন :

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর ....
এক ক্লিকে বিভাগের খবর