রবিবার, ১৩ জুন ২০২১, ০৬:৪৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :
১২/৬/২০২১ঃকুষ্টিয়ায় মোবাইল কোর্ট অভিযান কুষ্টিয়া হাউজিং এলাকায় গভীর রাতে নারীর উপর দুর্বৃত্ত হামলা, সম্পদ লুট করতেই এই হামলা অভিযোগ পরিবারের করোনা ভাইরাস এর টিকা কিনতে চীনের সঙ্গে ক্রয় চুক্তি : স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বিশ দলীয় জোট ও ঐক্যফ্রন্টকে বাদ দিয়ে অনেকটা একলা চলো নীতিতে বিএনপি ১২ টাকায় বিক্রি হচ্ছে সুন্দর মনোরম এই বাড়ি প্রানে বেঁচে গেলেন ভূমি কর্মকর্তা হাজী মো আনোয়ার হোসেন কুষ্টিয়া কুমারখালী গবাদি পশুর ভেজাল খাদ্য তৈরির কারখানা বানিয়ে প্রতারণা করে আসছেন রিংকু নামে এক কতিপয় ব্যক্তি এক কুমারি মেয়ের ৭ মাসের শিশু পুত্র সন্তানের জন্ম হয়েছে ঠাকুরগাঁওয়ে আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর বরাদ্দে বাণ্যিজের অভিযোগ বাকেরগঞ্জে ওসি আলাউদ্দিনের বুদ্ধিমত্তায় মাদক উদ্ধার ও গ্রেফতারের হিড়িক,

তালিকায় নামও আছে, তবুও ৪ বছরে মেলেনি কুমারখালী সরকারী বালিকা বিদ্যালয়ের উপবৃত্তির টাকা

এনামুল হক ইমন,কুমারখালী প্রতিনিধি। / ৪৫ বার পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : বুধবার, ২৬ মে, ২০২১, ৩:১৬ অপরাহ্ন

 

এনামুল হক ইমন কুমারখালী উপজেলা প্রতিনিধি।  কুষ্টিয়ার কুমারখালী সরকারি বালিকা বিদ্যালয় এর প্রধান শিক্ষক মো আবুল কাশেম এর দায়িত্ব জ্ঞানহীন অবহেলা ও গাফিলতির কারনে  তালিকায় নাম থাকলেও ৪ বছরে উপবৃত্তির টাকা পায়নি নবম শ্রেণির এক ছাত্রী।টাকার অভাবে বন্ধ হতে বসেছে ভুক্তভোগী ঐই স্কুল ছাত্রীর লেখাপড়া।

ঘটনা সূত্রে জানা যায় ৬ষ্ঠ শ্রেনীতে পড়াকালীন সময়ে উপবৃত্তির তালিকায় নাম আসলেও মোবাইল নাম্বার ভুলের কারনে একই শ্রেণির আরেক ছাত্রী যে তালিকাভুক্ত নয় তার মোবাইলে টাকা আসে এবং ৪ বছর পর্যন্ত সেই ছাত্রীই উপবৃত্তির সুবিধা ভোগ করছে। দীর্ঘ সময়েও মোবাইল নাম্বার সংশোধন করেনি বা করার প্রয়োজন মনে করেন নি বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক।

ভুক্তভোগী স্কুল ছাত্রীর বাবা নুরুজ্জামান জানান, তার মেয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেনীতে প্রথম উপবৃত্তির টাকা না পেয়ে স্কুলের প্রধান শিক্ষকের নিকট অভিযোগ দিলে তিনি জানান মোবাইল নাম্বার ভুলের কারনে তার মেয়ের পরিবর্তে একই শ্রেণির আরেক ছাত্রীর ০১৭১০৪৫১১৭৭ নাম্বারে টাকা এসেছে। মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে দরখাস্ত দিয়ে ঠিক করা হবে। কিন্তু বর্তমানে তার মেয়ে নবম শ্রেণিতে পড়ছে এখনো পর্যন্ত উপবৃত্তির টাকা তিনি পাননি।

তিনি আরো জানান তিনি একজন খেটে খাওয়া মানুষ সামান্য আয় করেন। তার মেয়ের টাকা আরেক ছাত্রী যার মোবাইলে আসে তারা অবস্থাশালী স্কুল কর্তৃপক্ষ ইচ্ছে করলে স্কুলে বসেই বিষয়টি সমাধান করতে পারতেন।

এ বিষয়ে কুমারখালী সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবুল কাশেম এই প্রতিবেদক কে জানান   উপবৃত্তির ক্ষেত্রে এমন ভুল মোট ৬৯ জন শিক্ষার্থীর হয়েছিল। মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের মাধ্যমে ৬৫ জনের সমাধান ইতিমধ্যে হয়েছে বাঁকী ৪ জনের জন্য আবারও দরখাস্ত দেয়া হয়েছে আশা করছি খুব দ্রুত সমাধান হবে।

এ বিষয়ে মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. আব্দুর রশিদ জানান এই প্রতিবেদক কে জানান  আমার কাছে এমন সমস্যা জানিয়ে কোন দরখাস্ত দিয়েছে কিনা মনে করতে পারছিনা। প্রধান শিক্ষক এসে আমাকে জানালে বুঝতে পারবো বিষয়টি কি?


আপনার মতামত লিখুন :

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর ....
এক ক্লিকে বিভাগের খবর