রবিবার, ১৩ জুন ২০২১, ০৬:৪৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :
১২/৬/২০২১ঃকুষ্টিয়ায় মোবাইল কোর্ট অভিযান কুষ্টিয়া হাউজিং এলাকায় গভীর রাতে নারীর উপর দুর্বৃত্ত হামলা, সম্পদ লুট করতেই এই হামলা অভিযোগ পরিবারের করোনা ভাইরাস এর টিকা কিনতে চীনের সঙ্গে ক্রয় চুক্তি : স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বিশ দলীয় জোট ও ঐক্যফ্রন্টকে বাদ দিয়ে অনেকটা একলা চলো নীতিতে বিএনপি ১২ টাকায় বিক্রি হচ্ছে সুন্দর মনোরম এই বাড়ি প্রানে বেঁচে গেলেন ভূমি কর্মকর্তা হাজী মো আনোয়ার হোসেন কুষ্টিয়া কুমারখালী গবাদি পশুর ভেজাল খাদ্য তৈরির কারখানা বানিয়ে প্রতারণা করে আসছেন রিংকু নামে এক কতিপয় ব্যক্তি এক কুমারি মেয়ের ৭ মাসের শিশু পুত্র সন্তানের জন্ম হয়েছে ঠাকুরগাঁওয়ে আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর বরাদ্দে বাণ্যিজের অভিযোগ বাকেরগঞ্জে ওসি আলাউদ্দিনের বুদ্ধিমত্তায় মাদক উদ্ধার ও গ্রেফতারের হিড়িক,

ঠাকুরগাঁওয়ে নিজ শিশু সন্তান কে হত্যা করলো মা

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি। / ৩৭ বার পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : বুধবার, ৯ জুন, ২০২১, ৯:৩১ পূর্বাহ্ন

ঠাকুরগাঁওয়ে মায়ের হাতে শিশু হত্যা।

ঠাকুরগাঁও,গত ইং ০৩/০৬/২০২১ তারিখ দুপুর ১২ ঘটিকায় ঠাকুরগাঁও থানাধীন ১২নং সালন্দর ইউনিয়নের ০২নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য মোবাইল ফোনে জানান যে, ঠাকুরগাঁও থানাধীন দেওগাঁও চেড়াডাঙ্গী গ্রামের মোঃ জয়নাল মাষ্টারের নাতি আমির হামজা আরাফ (০৬) দূর্ঘটনা বশত ফ্যানের সাথে গলায় গামছা পেঁচিয়ে মৃত্যুবরণ করে। উক্ত ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ঘটনাস্থলে ঠাকুরগাঁও থানা পুলিশ প্রেরণ করা হয় এবং ঠাকুরগাঁও থানার অপমৃত্যু মামলা নং-৩২, তাং-০৩/০৬/২০২১খ্রিঃ মূলে মৃতদেহ সুরতহাল করতঃ মৃতদেহ ময়না তদন্তের জন্য প্রেরণ করা হয়। শিশু আরাফের মৃত্যুর সঠিক কারণ উদঘাটনের প্রেক্ষিতে সুরতহাল প্রস্তুতকারী অফিসার এসআই (নিঃ) পিযুস চন্দ্র সরকার সহ একটি তদন্ত টিম গঠন করা হয়। তদন্ত টিম নিবিড় ভাবে তদন্ত কার্য পরিচালনা করতে থাকে। সে সাথে মৃত আমির হামজা আরাফ (০৬) এর পিতা মোঃ খলিলুর রহমান জুলফিকারকে তার ছেলের মৃত্যুর বিষয়ে তার স্ত্রীকে বিভিন্নভাবে জিজ্ঞাসাবাদের পরামর্শ প্রদান করা হয়। মোঃ খলিলুর রহমান জুলফিকার জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে ধারণা করেন যে, তার স্ত্রী তার শিশু সন্তান আমির হামজা আরাফ কে সুকৌশলে হত্যা করেছে। উক্ত হত্যাকান্ড ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য তার স্ত্রী (জান্নাতা) বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করেছেন। মৃতের পিতা মোঃ খলিলুর রহমান জুলফিকার,অপমৃত্যু মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তার নিকট তার ছেলে (আরাফ) এর মৃত্যুর সন্দেহের বিষয়টি মোবাইল ফোনে অবহিত করলে মৃতের মা মোছাঃ জান্নাতা আক্তারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় হাজির করার পরামর্শ দেয়া হয়। অপমৃত্যু মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও তদন্তটিম মৃতের মাতা মোছাঃ জান্নাতা আক্তার কে প্রাপ্ত বিভিন্ন তথ্যের ভিত্তিতে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করেন। জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে জান্নাতা (মৃতের মাতা) তার ছেলে শিশু আরাফের হত্যার বিষয়টি স্বীকার করেন। জিজ্ঞাসাবাদে জান্নাতা আরো জানান যে, তার স্বামী মোঃ খলিলুর রহমান জুলফিকার এর সাথে ঢাকা শহরে বসবাস করাকালীন একই ফ্লাটে বসবাসকারী জনৈক ইমরান নামক এক অবিবাহিত ছেলের সঙ্গে পরিচয় হয়। পরিচয়ের সুবাদে উভয়ের মধ্যে গভীর প্রেম ভালবাসা এবং অবৈধ শারীরিক সম্পর্ক তৈরি হয়। তারা নিয়মিত মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করত এবং মাঝে মধ্যেই ইমরান মৃতের পিতার অবর্তমানে মোছাঃ জান্নাতা আক্তার এর সাথে দেখা করার জন্য বাসায় আসত। ইতোমধ্যে ঘটনার আনুমানিক ০২ মাস পূর্বে লকডাউনের কারণে জুলফিকার তার স্ত্রী ও সন্তানদ্বয়কে ঠাকুরগাঁও থানাধীন দেওগাঁও চেড়াডাঙ্গী গ্রামের শশুরবাড়ীতে রেখে যায়।

ইমরান মৃতের মাতা মোছাঃ জান্নাতা আক্তারকে বিবাহ করার জন্য মোবাইল ফোনে বিভিন্নভাবে চাপ প্রয়োগ করতে থাকে। দুই সন্তান ও স্বামীকে ছেড়ে ইমরানকে বিয়ে করা নিয়ে জান্নাতা (মৃতের মাতা) মানসিক অস্থিরতায় ভুগছিল। গত ০৩/০৬/২০২১ খ্রিঃ তারিখ বেলা অনুমান ০৯:৩০ হতে ১০.৩০ ঘটিকার মধ্যে আরাফ তার নানার ঘরে দুষ্টামি করছিল যা জান্নাতা আক্তার সহ্য করতে না পেরে তার ছেলে আমির হামজা আরাফ (০৬) কে বিছানার উপর ফেলে দিয়ে পিছন দিক হতে তার মাথা চেপে ধরে এবং এক পর্যায়ে শিশু আরাফের গলার দুই পাশ থেকে গামছা পেঁচিয়ে সজোরে টান দিয়ে শিশু আমির হামজা আরাফ (০৬) এর মৃত্যু নিশ্চিত করেন।

উল্লেখিত আসামী মোছাঃ জান্নাতা আক্তার (২৭) বিজ্ঞ আদালতে তার শিশু আরাফের হত্যা সংক্রান্তে ফৌঃকাঃবিঃ ১৬৪ ধারা মোতাবেক দোষ স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি প্রদান করেন। রুজুকৃত ঠাকুরগাঁও থানার মামলা নং-০৭, তারিখ-০৭-০৬-২০২১ খ্রিঃ, ধারা-৩০২/২০১/৩৪ পিসি তদন্তাধীন রয়েছে।

সুএঃ পুলিশ সুপার ঠাকুরগাঁও।


আপনার মতামত লিখুন :

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর ....
এক ক্লিকে বিভাগের খবর