শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১, ০১:১৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :
আশেপাশের ওয়ার্ড গুলোতে পানি নিস্কাশন ব্যবস্থা থাকলেও পৌর ১৪ নং ওয়ার্ডে এই দুর্ভোগ চরমে ফেইসবুকে পোস্ট দেখে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলেন ভোলা ২ আসনের সংসদ আলী আজম মকুল কুমারখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সালাউদ্দিন খান তারেকের নিজ অর্থায়নে ১ টি কন্সেনট্রেটর উপহার দিলেন খোকসায় করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইসাহক আলী’র ভুমিকা প্রশংসনীয় খোকসায় প্রধান মন্ত্রীর উপহার সামগ্রী বিতরণ করলেন এমপি ব্যারিষ্টার সেলিম আলতাফ জর্জ সাম্প্রদায়িক শক্তি, ঘুষ, দুর্নীতির বিরুদ্ধে রুখে দাড়াও-এ্যাড. জয়দেব কুমারখালীতে তৃতীয় লিঙ্গের মানুষের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার সামগ্রী বিতরণ করলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা খোকসায় তাসফিয়া নামের এক শিশু পানিতে ডুবে মৃত্যূ কুষ্টিয়ায় নকল কসমেটিকস কারখানায় অভিযানঃজরিমানা আদায় ০২ লাখ টাকা কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে আওয়ামীলীগের দুগ্রুপের সংঘর্ষ

ঠাকুরগাঁওয়ে আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর বরাদ্দে বাণ্যিজের অভিযোগ

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি। / ৪৯ বার পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : শুক্রবার, ১১ জুন, ২০২১, ৬:১৯ অপরাহ্ন

ঠাকুরগাঁওয়ে আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর বরাদ্দে বাণ্যিজের অভিযোগ ইউএনও’র স্যালকের বিরুদ্ধে, একজন আটক থানায় মামলা।

ঠাকুরগাঁওয়ে হরিপুরে সরকারের আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর বরাদ্দ নিয়ে বাণ্যিজের অভিযোগ পাওয়া গেছে ইউএনও’র স্যালকের বিরুদ্ধে। টাকা ফেরত না দেয়ায় জড়িত থাকার অভিযোগে ঘর বঞ্চিত অসহায় পরিবারের লোকজন ও উৎসুক জনতা আবুল কালাম আজাদ নামে একজন আটকের পর পুলিশে কাছে সোপর্দ করে। এ ঘটনায় হরিপুর থানায় একটি মামলা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, সরকারি ঘর বরাদ্দের নামে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে হরিপুর উপজেলার ভাতুরিয়া ইউনিয়নের রামপুর গৃহায়ন প্রকল্প এলাকা থেকে আটকের পর তাকে থানায় নিয়ে আসা হয়। প্রাথমিক জিঙ্গাসাবাদে আটক আবুল কালাম আজাদ জানায় সে হরিপুর ইউএনও’র আওতায় সরকারি প্রকল্পের ঘর তৈরির মালামাল সরবরাহের দায়িত্ব ছিল। সেই সুযোগে ইউএনও’র স্যালক তানবিন হাসান ঘর বরাদ্দের নাম করে আবুল কালাম আজাদকে দিয়ে ওই এলাকার প্রায় ৮-৯ জনের কাছে ১লাখ ৬৯ হাজার গ্রহন করে। এ বিষয়ে ভুক্তভুগী সাইদুল ইসলাম বাদি হয়ে হরিপুর থানায় মামলা দায়ের করেন।
মামলার বাদি সাইদুল ইসলাম ও ভুক্তভুগী ওহাব আলী, এরশাদ আলী অভিযোগ করে বলেন, আমরা অসহায় মানুষ আবুল কালাম আজাদ ঘর নির্মানের কাজে দেখভালের দায়িত্বে ছিল। আর ইউএনও’র স্যালক তানবিন প্রকল্প এলাকায় নিয়মিত আসা যাওয়া করতো। আমাদের ৯ জনকে ঘর দেয়ার কথা বললে আমরা ঋণ মহাজন করে তাদের কথামত আবুল কালাম আজাদকে টাকা বুঝে দেই শুধু ঠাই পাওয়ার আশায়। আমরা নিশ্চিত ছিলাম যেহেতু ইউএনও’র স্যালক টাকা দিতে বলেছে ঘর পাবো। কিন্তু ঘর বরাদ্দের ফাইনাল তালিকায় আমাদের নাম না থাকায়। তাদের কাছে টাকা ফেরত চাইলে কাল ক্ষেপন করে। পরে আবুল কালাম আজাদকে সবাই আটক করে পুলিশে দেয়। আমরা আমাদের টাকা ফেরতের পাশাপাশি তারা আরো অনেক ব্যক্তির কাছে টাকা নিয়েছে তা তদন্ত করে তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমুলক ব্যবস্থার দাবি করছি।
হরিপুর উপজেলার ইউএনও আব্দুল করিম জানান, আমি বিষয়টি শুনেছি। তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে এড়িয়ে যান।
এ বিষয়ে হরিপুর থানার ওসি এস এম আওরঙ্গ জেব জানান, জিঙ্গাসাবাদে আটক আবুল কালাম আজাদ অর্থ নেয়ার কথা স্বীকার করেছে। আর ইউএনও’র স্যালক তাকে ঘর বরাদ্দের জন্য স্থানীয়দের কাছে টাকা নেয়ার নির্দেশ দেয় বলে স্বীকার করে। মামলার এজাহারে আবুল কালাম আজাদকে আসামী করা হয়েছে। আর অর্থ লেনদেনের সাথে জড়িতের অভিযোগে ইউএনও’র স্যালক তানবিনের নাম সন্দেহজনকভাবে এজাহারের ভিতরে উল্লেখ করা হয়েছে। মামলার তদন্তে সব বেড়িয়ে আসবে।

হরিপুর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল করিম বলেন, করোনার কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় শ্যালক তানবিন প্রকল্পের কাজ দেখাশোনা করছিলো। কোনো প্রকার আর্থিক অনিয়মকে প্রশয় দেওয়া হবে না। এ বিষয়ে আদালত ব্যবস্থাগ্রহণ করবেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর ....
এক ক্লিকে বিভাগের খবর